মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১২ জুলাই ২০১৫

জিমন্যাস্টটিক্স

জিমন্যাষ্টিকসের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

 

Small old Gymnastics History,in the 700B.c to1400B.C Greek king minas gladdiras to see the psycal actevetys, ৩০০০ বৎসর আগে সর্ব প্রথমে গ্রীসে এই খেলা শুরম্ন, প্রায় উলঙ্গ অবস্থায় তখন তারা এই খেলা খেলতো, যার জন্য গ্রীক ওয়ার্ড জিমিন্যাস বলত যার শাব্দিক অর্থ ’ন্যাকেড’ যারা সবাই এদেরকে জিমন্যাস্ট বলেই আক্ষায়িত করত। পরবর্তিতে রোমান ইম্পেরিয়ারসগন এই খেলাকে ফিজিক্যাল গেমস হিসেবে প্রাধান্ন দেয়। চাইনিজ সভ্যতায় বলা হয়  ’কার্যহীন শরীর’ শরীরের রোগ হয়’এবং চায়নাদের জিমন্যস্টিকস প্রচলন শুরম্ন হয় কুমফু থেকে এই খেলাকে অনেক দিন, অনেক দেশই এই খেলার প্রতি আগ্রহ দেখাইনি,তারপর সুইডিশরা এতে বেশ পারদর্শি হয়ে উঠে এবং জার্মানীরাই প্রথম এ্যাপারার্টাস আবিস্কার করে  এর উপর পারদর্শি হয়ে উঠে। এক সময় শুধু মাত্র আটির্স্টিকস জিমন্যাস্টিকস চর্চা শুরু হয় যা এ খেলাকে সংগঠিত করার জন্য মুলত জিমন্যাষ্টিকস শুর হয়, ১৫৬৯ই সালে ফিজিক্যাল থেরাফিস্ট  ইটালির Girolamo Meruricale যাকে সর্ব প্রথম স্পোর্টস মেডিসিনের প্রর্বতক বলে ধরা হয়, সেই প্রথম একটি বই লেখেন, যেখানে জিমন্যাষ্টিকস এক্সারসাইজ দারা শারীরিক অক্ষমতা দুর করার জন্য জিমন্যাষ্টিকস এর প্রচলন করেন তবে এর অনেক আগে, জিমন্যাষ্টিকস যুদ্ধের রণ কৌশল হিসাবে প্রাধান্য পেত।

১৭০০ শতাব্দীতে মনিষি’ রম্নশো ’ বিশ্বাস করতেন এবং বলতেন  physical Educatiton More importin than rellgious Edcatiton .প্রায় একই সময় গ্রেট ব্রিটেনের ’লক ’’ তিনি বিশ্বাস করতেন, Sound mind is in a sound Body. সুতরাং বলা যায় শুরু এখান থেকেই। তবে আধুনিক জিমন্যাষ্টিকস এর জনক বলা হয় Jhone friends (1778-18&Gutsmuts(1759-1839)এবংSoteloas জ্ন্ম  ফেব্রুয়ারী feb.19.1770 =8.8.1848 এদেরকে আধুনিক জিমন্যাষ্টিকস এর জনক ও ফিজিক্যাল এডুকেটর  বলা হয়। এফ আই জি (আমত্মজার্তিক জিমন্যাষ্টিকস ফেডারেশন) গঠিত হয় গঠিত হয় ১৮৮১ইং সালে জিন্যাষ্টিকস প্রতিযোগিতা হয় তিনটি রাষ্ট্র নিয়ে এবং ১৮৮১ইং সালে আমত্মজার্তিক জিন্যাষ্টিক ফেডারেশন গঠিত হয় বর্তমানে এফআইজি সদস্য পদ বালাদেশ সহ মোট ১২৯টি দেশ।বৃটিশ এ্যামেচার জিমন্যষ্টিকস এ্যাসোসিয়েশন(বাগা) গঠিত হয় ১৮৮৮ সালে । ১৮৮১ইং সালে বৃটিশ পুরুষদের প্রতিযোগিতা  মুলক জিমন্যষ্টিকস শুরু হয়, ১৮৯৬ইং সাল অলিম্পিক গেমস থেকে ১২ পৃষ্ঠার একটি কোড্ অব পয়েন্টস বই অনুসরন করে,যেখানেএঐচ্ছিক ব্যায়ামের বসুওনিষ্ট মূল্যায়নের উদ্দেশ্যে তিনটি বিষয়(Diffculty.Combinatiton.Execution) বিবেচনা করা হয় ।

২০ সেঞ্চুরী   বিংশ শতাব্দি হলো জিমন্যাষ্টিস জন্য টার্নিং পয়েন্টস।

 ১৯৫০ইং সাল কোড্ অব পয়েন্টস অনুসরন করে প্রথম জাতীয় ও আমত্মজার্তিক ভাবে প্রতিযোগিতা শুরু করে। ১৯২০ সাল যে ইভেন্ট প্রতিযোগিতা হত দলগত সিনক্রোনাইজ, ক্যালেসত্যানিক রোপ ক্লাইম্বিং,হাইজ্যাম্প ,প্রতিবন্দকতা, দৌড়, ইত্যাদি ছিল। ১৯২৪সালে অলিম্পিক গেমস আর্মস্টাডামে মহিলাদের দলগত সিনক্রোনাইজ, ক্যালেসত্যানিক দিয়ে শুরু করে এবং পুরুষদের প্রতিযোগিতা প্রায় ৩০ বছর পর, ১৯৫২ সালে মহিলাদের ৪টি এ্যাপারাটার্স জিমন্যষ্টিকস প্রতিযোগিতা শুরু হয় । তার আগে মহিলাদের কোন অনুমতি দেয়নি অলিম্পিক কমিটি। ১৯০০ইং সালে শৃধু মাত্র দুটি খেলায় অলিম্পিক কমিটি অনুমতি দিয়ে ছিল এক লন টেনিস দুই গল্ফ যেখানে ৬ জন করে মহিলা অংশ গ্রহন করে  ছিল। (মেয়েদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে প্রথম ১৮৯৬ অলিম্পিকে ০%, ২য় অলিম্পিকে ১৯০০ সালে ৩.৫%, রোম অলিম্পিকে ১৯৬০ সালে ১১.৫%, মস্কো অলিম্পিকে ১০৮৮এবং, ১৯৯৬ অলিম্পিকে  ৪০% এবং ২০০০ অলিম্পিকে ৪২%) । ১৯৪৮ শুরু হয় এ্যপারার্টস উপর জিমন্যষ্টিকস, সেখানে আধুনিক  এ্যাপারার্টস প্রবর্তন হয় এবং এখানে পুরুয় ও মহিলাদের জিমন্যাষ্টিকস ইউনিফর্ম(কষ্টিউমস) পরে প্রতিযোগিতা অনুষ্টিত হয়। ১৯৬৩ইং সালে প্রথম রিদ্মিক জিম্যাষ্টিকস আরম্ভ হয়। এফআইজি নিয়ন্ত্রনে বর্তমানে আর্টিস্টিকস জিমন্যাস্টিকস যেখানে পুরুষ বিভাগে ৬টি প্রতিযোগিতা ,ফ্লোর এক্সারসইজ ,পোমেল্ড হর্স,হরাইজন্টাল বার, প্যারালাল বার,রোমান রিংস, ,ভোল্টিং টেবিল, মহিলাদের ৪টি প্রতিযোগিতা, ফ্লোর এক্সারসইজ ,ভোল্টিং টেবিল আনইভেনবার এবং ব্যালেন্সবীম। রিদমিকজিমন্যাষ্টিকস,  (যেখানে পাঁচটি হ্যান্ড এ্যাপারার্টাস যেমনঃ- ,বল ,হুপ ,রিবন ,ক্লাব্স,এবংরোপ দ্বারা প্রতিযোগিতা হয় যা শুধু মাত্র মহিলারাই করে, এ্যাক্রোবেটিকস পুরুষ এবং মহিলারা উভই করে,এ্যারোবিকস প্রতিযোগিতা মহিলা এবং পুরম্নষদের ক্ষেত্রেই হয়।  ট্রামপলিন এখানে দুটি প্রতিযোগিতা হয় যেমন ট্র্যামপলিন এবং ট্যাম্বলিং দুটিতেই মহিলা এবং পুরুষরা অংশ গ্রহন করে। । সব গুলিই এখন অলিম্পিক এবং ওয়ার্ল্ড কাপ প্রতিযোগিতার অমত্মরভুক্ত। আধুনিক বিশ্বে এই খেলাকে mothers of all sports বলে ।

বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্টানে জিমন্যাষ্টিকস এর গোড়া পত্তনঃ-

 ১৯৯১ দিকে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পায় জিমন্যাষ্টিকস বিভাগ খোলার ব্যাপারে। মাত্র ছয় জন বালক নিয়ে জিমন্যাষ্টিকস বিভাগ খোলা হয়, এবং ১৯৯৫ইং ৬ জন বালিকা নিয়ে মেয়েদের বিভাগ খোলা হয়।  তবে আজ য়েখানে বিকেএসপির জিমন্যাষ্টরা অবস্থান করছে,এটা অনেক পরিশ্রমের ফসল । এ পর্য়মত্ম বিকেএসপি থেকে প্রায় ১৪৫ জন জিমন্যাষ্ট পাসিং আউট হয়েছে।এমন কি বিকেএসপি আশে পাশে গ্রামের ৫০-৬০জন জিমন্যাস্ট এখান থেকে অনুশীলন করে বাংলাদেশ জাতীয় দলের সুযোগ করে নিয়েছে সে ক্ষেত্রে আমাদের সংখ্যা তথ্যে আরও বেশী হবে।  বর্তমানে জিমন্যষ্টিকস ৩০ জন ছাত্রছাত্রী আছে যাদের মধ্যে আমত্মজা©র্তক পর্যায়ে পদক প্রাপ্ত কয়েক জন পদক ধারী আছে।

 

একপলকে দেখা যাক বিকেএসপির অবস্থান

 

ক্রমিক নং

জিমন্যাষ্টিক প্রতিযোগিতা

প্রতিযোগিতা স্থান

প্রতিযোগিতা বছর

খেলার অবস্থান

জাততীয়জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

১৯৯০

রানার আপ

জাততীয়জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

১৯৯১

চ্যাম্পিয়ন

জাততীয় জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক )

ঢাকা

১৯৯২

রানার আপ

জাততীয় জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক )

দিনাজপুর

১৯৯২

চ্যাম্পিয়ন

জাততীয় সিনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক )

ঢাকা

১৯৯২

চ্যাম্পিয়ন

জাততীয় সিনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক )

চিটাগং

১৯৯৩

চ্যাম্পিয়ন

বাংলাদেশ গেমস

ঢাকা

১৯৯৪

১ গোল্ড ২ সিলভার

জাততীয়সিনিয়রজুনিয়রজিমন্যাস্টিকস(বালকবালিকা)

ঢাকা

১৯৯৫

চ্যাম্পিয়ন

জাততীয়সিনিয়র জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

১৯৯৭

চ্যাম্পিয়ন(বালক) রানার আপ(বালিকা)

জততীয় জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

১৯৯৯

চ্যাম্পিয়ন

১১

জাততীয়জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

২০০০

চ্যাম্পিয়ন

১২

জাততীয়জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

২০০১

চ্যাম্পিয়ন

১৩

জাততীয়জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

২০০২

চ্যাম্পিয়ন

১৪

জাততীয়সিনিয়র জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

২০০৩

চ্যাম্পিয়ন

১৫

জততীয় জুনিয়র জিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

২০০৪

চ্যাম্পিয়ন

১৬

জাততীয়সিনিয়রজুনিয়রজিমন্যাস্টিকস(বালকবালিকা বালিকা

ঢাকা

২০০৮

চ্যাম্পিয়ন

১৭

জাততীয়সিনিয়রজুনিয়রজিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

২০০৯

ওানার- আপ

চ্যাম্পিয়ন

১৮

জাততীয়সিনিয়রজুনিয়রজিমন্যাস্টিকস(বালক বালিকা

ঢাকা

২০১০

চ্যাম্পিয়ন

১৯

৩২জাততীয় সিনিয়র জুনিয়র ও বয়স ভিত্তিক জিমন্যাস্টিকস(বালকবালিকা বালিকা প্রতিযোগিতা

ঢাকা

২০১৩

সিনিয়র মেয়ে এবংবয়স ভিত্তিক চ্যাম্পিয়ন

২০

বাংলাদেশ গেমস ২০১৩ইং

ঢাকা

২০১৩

৩ গোল্ড ৮ সিলভার ৪ ব্রোঞ্জ

 

       

 

 

জাতীয় দলে বিকেএসপির ছাত্রছাত্রীদের  নামের তvালকা

 

আমির আলী

দুলাল গোমেজ

তেহরান

১৯৯৭

আনতজার্তিক জুনিয়র চ্যাম্পিয়ন জিমন্যাষ্টিকস প্রতিযোগিতা

আমির আলী ,দুলাল গোমেজ,মামুন আল ফিরোজী

এলাহাবাদ, ভারত

১৯৯৭

১ম সার্ক চ্যাম্পিয়নসিপ

মো: জহিরুল ইসলাম,মো: মোসয়েকুর রহমান মো: আসাদ্দুজমান মো: শামিম রানা

মালএশিয়া

১৯৯৮

প্রি-কমনওয়েলথ গেমস

দুলাল গোমেজ,মো: জহিরুল ইসলাম, মামুন আল ফিরোজী,মো: জহিরুল ইসলাম, হোসনা বানু,(জাহিদুর রহমান,শারমিন সুলতানা বিকেএসপির পাবলিক স্কুলের ছাত্রছাত্রী)

পাতিয়ালা ভারত

১৯৯৯

১ম সাউথ সেন্ট্রাল জিমন্যাষ্টিককস প্রতিযোগিতা

মো: জহিরুল ইসলাম,তানভীর আহমেদ,একেএম বরকত,মাহমুদুল হাসান, হাবিবুর রহমান, পারুল আক্তার,নিশাত আরা নাদিয়া ,রত্না বনিক ,উম্মে-কুলসুম,

এলাহাবাদ ভারত

২০০৫

২য় সাউথ সেন্ট্রাল এশিয়ান জিমন্যাষ্টিকস প্রতিযোগিতা

তানভীর আহমেদ,একেএম বরকত ,

মাহমুদুল হাসান,মোসফেকুর রহমান,

একে এম বরকত উম্মে-কুলসুম, রত্না বনিক,পারুল আখতার

লাখনৌ ভারত

২০০৬

৩য় সাউথ সেন্ট্রাল এশিয়ান রাজীব গান্ধী জিমন্যাষ্টিকস প্রতিযোগিতা

আবুল কালাম আজাদ,তানভীর আহমেদ,মাহমুদুল হাসান, পারুল আখতার,ফারজানাআখতার,সাদ্দামহোসেন,অনিতা আখতার,সাথী আখতার

কোলকাতা ভারত

২০১০

ইন্দো বাংলা গেমস

জহিরুলইসলাম,তানভীরআহমেদ,মোসফেকুর রহমান,অনিতা আখতার,সাথী আখতার,ফারজানা আখতার,মুশফিকা আখতার

ঢাকা (বাংলাদেশ)

২০১২

৪র্থ সুলতানা কামাল সাউথ এশিয়াজিমন্যাষ্টিককস প্রতিযোগিতা

 


Share with :
Facebook Facebook